দুষ্ট স্বামীকে বশ করা

দুষ্ট স্বামীকে বশ করার আমলঃ

এই আমল টি ছেলেরাও করতে পারেন দুষ্ট স্ত্রীকে বশ করার জন্য। স্বামী স্ত্রীর মধ্যে সম্পর্ক যত বেশি ভালো হবে সংসারে তত বেশি উন্নতি হবে। তাদের মধ্যে ভালোবাসার বন্ধন দূর্বল হলে বিভিন্ন দিক থেকে বিপদ আপদ নেমে আসে। সর্বদা অশান্তিতে ভুগতে হয়। কোন পরিবারে স্ত্রীর দূর-ব্যবহারের জন্য স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সম্পর্ক খারাপ হয় আবার কোন পরিবারে স্বামীর দূর-ব্যবহারের জন্য দুজনের মধ্যে সম্পর্ক খারাপ হয়। যদি দুষ্ট হয় স্ত্রীর কোন কথায় মর্যদা দেয়না ভালো ব্যবহার করে না, তাহলে স্ত্রী এ আমল করবে। অন্যদিকে স্ত্রী যদি দুষ্ট হয় স্বামীর কথা শুনে না বেগানা পুরুষের সাথে মেলামেশা করে তাহলে স্বামী এ আমল করবে। যারা আমাদের এই আলোচনাটি পড়তেছেন ধরে নিলাম আপনি এক পুরুষ ভিজিটর ভাই।  তাহলে একটু ভাবুন তো- যারা নিজ স্ত্রীর সাথে খারাপ ব্যবহার করেন। তাহলে একটু মনে করুন তো- একজন মেয়ে সব কিছু ছেড়ে আপনার সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছে। তার আপন বলতে আপনি আছেন। আপনি তার সব তার জীবন। অন্যদিকে আপনার বোনের সাথে যদি আপনার বোন জামাই এরকম আচরণ করেন তাহলে কি আপনার খারাপ লাগবে না। অবশ্যই আপনার কষ্ট হবে। কারন সেও মেয়ে সে আপনবেন। আবার ভাবুনতো আপনার স্ত্রীর ও আপনজন আছে তারও বাবা-মা আছে, আপনার মতো তারও ভাই আছে।

তাই আমি আপনাদের একটা কথা বলতে চাই- আপনিও আপনার স্ত্রীর সাথে ভালো ব্যবহার করুন তাকে ভালোবাসুন তাহলে দেখা যাবে যে, সেও আপনাকে ভালোবাসে আপনার সেবা যত্ন করবে।

যদি এমন মেয়ে আমাদের এই আলোচনাটি পড়েন তাদের কাছে আমার একটাই অনুরোধ আপনারা এমনটা করবেন না। কারন আপনাদের ভবিষ্যত কাল আপনার স্বামীর কাছেই তাই বলবো স্বামীর সেবা যত্ন করবেন।

যদি স্বামী কিছুতেই আপনার কোন কথা শুনছে না আপনার সাথে দূর-ব্যবহার করছে আপনার কোন মূল্য দিচ্ছে না। তাহলে যে কোন নামাজের পর ১১০০ বার (ইয়া জালিলু) পাঠ করে  কোন খাবারের উপর ফুঁ দিয়ে আপনার স্বামীকে খাওয়াবেন তাহলে আল্লাহ তা’য়ালা অবশ্যই আপনার স্বামীকে আপনার প্রতি আকৃষ্ট করবেন।