পরীক্ষায় পাশের তাবিজ ও ঔষধ

পরীক্ষায় পাশের তাবিজ ও ঔষধঃ

আজকে আমরা একটা বিষয় নিয়ে উপস্থিত হয়েছি। যেটা অনেকেই ট্রাই করে থাকে। তবে আমি মনে করি এই তদবীর এর পিছনে থেকে কোন লাভ নাই যদি আপনি পড়া লেখা না করেন। এই তদবীর টি যদি আপনি গ্রহণ করতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই পরীক্ষার তিন মাস আগে থেকেই প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে। তার মানে দাঁড়ায় আপনি এই তদবীরটি করবেন আর পাশাপাশি খুব মনোযোগ সহকারে পড়া লেখা করবেন। আপনি যেই পড়া গুলো মন দিয়ে পাঠ করবেন ঠিক সেগুলোই আপনার মাথায় সন্ঞিত রাখতে সাহায্য করবে এই তদবীর উপরওয়াল দয়ায়। এই তদবীরটি অন্য ভাবেও ব্যবহার হয়ে থাকে। যাদের ব্রেণ খুব দূর্বল ও পড়া লেখা করে কিন্তু মনে থাকে না। ঠিক সেই সকল মানুষেরাও এই তদবীর খানা যেকোন সময় ব্যবহার করতে পারবেন। আমরা বলছি না যে, আমাদের এই তাবিজ ও ঔষধ ব্যবহার করলেই আপনি পরিক্ষায় পাশ করবেন। আসলে এটা কখনো সম্ভব না, কারণ আপনি পরীক্ষার নাম্বার পাবেন পরীক্ষার খাতায় যতটুকু প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন। এখন কথা হইলো তাহলে কেন আমি এই তদবীর খানা ব্যবহার করবো। আমাদের এই তদবীরের উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য হচ্ছে, যারা পড়া লেখা করে ও কিছু দিন পরে তা নিজের মাথায় রাখতে পারে না। ক্লাসে ভালো ছাত্র কিন্তু পরীক্ষার বেলায় কম মার্ক পায় বা ফেইল করে। ঠিক তাদের জন্যই আমাদের এই তদবীর।।

স্মরণ শক্তি বৃদ্ধির ঔষধঃ

কোন কিছু মনে রাখতে অসুবিধা হলে ২ থেকে ৩ তোলা পরিমাণ থানকুনি পাতার রস এক চামুচ মধু ও আধা কাপ দুধের সাথে মিশায়ে সেবন করলে স্মরণ শক্তি পরিষ্কার হয়ে বৃদ্ধি পাবে এবং এতে খুবই উপকার হবে।

নিচের নকশা টি কাগজে লিখে পানির সাথে গুলে ঐ পানি পান করলে জ্ঞান শক্তি বৃদ্ধি পাবে।

নকশাটি এইঃ-

বিঃদ্রঃ- উপরোক্ত তদবীরটি সবার কাছে শেয়ার করার জন্য অনুরোধ রইলো। প্রয়োগের পূর্বে অবশ্যই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন ও অন্যান্য বিষয় গুলো বুঝে নিন। তবে তদবীরটি গ্রহনের পূর্বে আপনাকে অবশ্যই হাদিয়া দিয়ে অনুমতি সাপেক্ষ্যে কাজ করতে হবে। নতুবা ফল না পাওয়াই স্বাভাবিক।। তাই কাজটি সঠিক ভাবে প্রয়োগ করুন ও সফল হউন। আসছে আগামীতে নতুন বছরের অনেক গুলি পরীক্ষা। তাই এখন থেকেই এই তদবীরটির প্রস্তুতি গ্রহন করুন। ধন্যবাদ।।