পাওয়ারফুল বশিকরন মন্ত্র

পাওয়ারফুল বশিকরন মন্ত্রঃ

লজ্জাতুন নেছা.কম এর পক্ষ্য থেকে আপনাদের সকলকে জানাই আন্তরিক অভিনন্দন। আপনি হয়তো কাউকে মন থেকে ভালবাসেন কিন্তু কোন দিন সময় ও সুযোগ হয়তো আপনার আর হয়নি যে, আপনার মনের কথাগুলি সেই মানুষটিকে বলতে। আজ বলবো কাল বলবো কিন্তু নিজের ভিতরে লজ্জা ও ভয় বাসা বাসা বাধে তাই আর বলে উঠা হয় না। আপনি মনে মনে ভাবেন যে, সে যদি আমাকে বলতো যে, আমি তোমাকে ভালবাসি ও তোমাকে আপন করে পেতে চাই তাহলে কি আনন্দ টাই না হতো। এরকম চিন্তা ভাবনা যদি আপনার হয়ে থাকে তাহলে আপনি নিচের মন্ত্রটি প্রয়োগ করতে পারেন।

মন্ত্রঃ
“দুই চক্ষে করিলাম নজর বন্ধি।

এই নজর করিলাম শিশি তুলসী বান্ধি।

রাম-লক্ষন ধনুকের বান।

জিতা থাকলে খাট পালংক।।

মইরা গেলে মহা শ্মশানঘাট।

ছার ছার ছার তো বাপ মা ছার।

ছার ছার ছার তোর আত্মীয়স্বজন ছার।

ছার ছার ছার তোর পাড়া প্রতিবেশী ছার।

আমারে ছাড়িয়া যদি অন্য দিকে যাস ফিরে।

দোহায় হযরত আলী মা ফাতেমার মাথা খাস ছিঁড়ে।

আমার এই মন্ত্র বিদ্যা যদি টুটে- মা ফাতেমার মস্তক ছিড়ে ভুমিষ্ঠে পড়ে।।।”

এটি একটি কুফরী কালাম মন্ত্র তাই বিনা কারণে এটি উচ্চারণ পর্যন্তু করতে যাবেন না।

উক্ত মন্ত্রটি ১০১ বার পাঠ করে যেকোন মিষ্টি দ্রব্যের উপর মন্ত্রপুত করে, তারপর মনের মানুষটিকে খাওয়ালে সে চিরজিবনের জন্য আপনার বশীভূত হবে এই মন্ত্র দ্বারা নারী পুরুষ কে মাত্র ৩ ঘন্টায় বশ করা যায়।তবে হ্যা এই মন্ত্রের যাকাত হিসেবে চন্ডিবরন করা প্রয়োজন। চন্ডিবরন ছাড়া এই মন্ত্র কাজ হবে না।। অনুমতির জন্য আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। ধন্যবাদ।

(প্রিয় ভিজিটরগণ এই মন্ত্র টি হয়তো আপনারা দেখেই বুঝতে পেরেছেন যে, কত সহজ ও সাবলীল যে কেউ এই মন্ত্রটি কাজে লাগাতে পারবেন। এই মন্ত্রটি সংগ্রহ করা হয়েছে আমাদের প্রাপ্ত বয়স্কা তান্ত্রিক মহাদয়ের একটি পুস্তক থেকে- (লোক চিকিৎসায় তন্ত্র-মন্ত্র) বই থেকে। আপনারা চাইলে এই বইটি ক্রয় করে নিজের কাজ গুলি নিজে নিজেই করতে পারবেন। আমরা আপনাদের অনুমতি প্রদান করবো ও প্রতিটি কাজের পূর্বে সহযোগীতা করবো। ধন্যবাদ।)