পুরাতন প্রেম ফিরে পাওয়ার উপায়

এক ঘন্টায় পুরাতন প্রেম ফিরে পাওয়ার উপায়ঃ

সুপ্রিয় ভিজিটরগন সবাইকে স্বাগতম।।।

আজ আমি আপনাদের বলবো, কিভাবে ১ ঘন্টায় পুরানো প্রেম ফিরে পাওয়া যায়। যাদের ব্রেকআপ হয়ে গেছে! কিংবা অনেক আগে প্রেমের সম্পর্ক ছিলো কিন্তু তা এখন বিছিন্ন হয়েগেছে, এখন সব সময় তাকে পাওয়ার জন্য মন মরিয়া হয়ে গেছে। ঠিক তাদের জন্যই আমাদের আজকের আলোচনা।

আজকের বিষয়টি খুব ফলদায়ক একটি টোটকার মাধ্যমে করতে আমরা আপনাদের সামেনে উপস্থিত হয়েছি। আপনারা অনেকেই জানেন টোটকার মাধ্যমে যেকোন মনষ্ককামনা করতে গেলে কিছু প্রয়োজনীয় জিনিস পত্রের প্রয়োজন পড়ে। তবে এই টোটকার জন্য যে সকল জিনিস পত্রের দরকার তা খুব কম দামের ভিতরে ও খুব কাছের দ্রব্য সামগ্রী। আপনারা যেকোন সময় যেকোন মুহূর্তেই এগুলি সংগ্রহ করতে পারেন। নিচে এই সকল দ্রব্য গুলি ও তার ব্যবহার সম্পর্কে আলোচনা করা হলোঃ-

দ্রব্য সমূহঃ-

একটি সবুজ সুতা

লবঙ্গ ( ফুল যেন থাকে লবঙ্গের মাথায়)

প্রদীপ

গোলাপের পাঁপড়ী

এক টুকরা সাদা কাগজ

এবং একটি সবুজ কলম।

প্রয়োগ বিধিঃ- প্রথমে সাদা কাগজের টুকরায় সবুজ কলম দ্বারা আপনার প্রেমিকার মায়ের নাম লিখবেন তার পর আপনার প্রেমিকার নাম লিখবেন। এই ভাবে (রাধার মেয়ে পরমা)। তারপর একটি ফুল ওয়ালা লবঙ্গ গোলাপের পাঁপড়ীর মধ্যে পেচীঁয়ে নিবেন। পেচীঁয়ে নেওয়ার সময় তিন বার মুখে মুখে বলবেন (রাধার মেয়ে পরমা) আমার বশীভুত হোক। তারপর সেই লবঙ্গ মোড়ানো গোলাপের পাঁপড়ী টি  নাম লেখা কাগজটির মধ্যে আবার মোড়াবেন আর মুখে মুখে বলবেন (রাধার মেয়ে পরমা) আমার বশীভুত হোক।মোড়ানোর পর  ঠিক যেন সিগারেটের মতো দেখতে হয়। তারপর সবুজ সুতা দ্বারা মোড়ানো কাগজ খানার দুই পার্শ্বে বাঁধবেন। আর  মুখে মুখে বলবেন (রাধার মেয়ে পরমা) আমার বশীভুত হোক, তারপর প্রদীপ জ্বেলে দিবেন। প্রদীপের আগুনের উপর মোড়ানো কাগজখানা আস্তে আস্তে পুড়াবেন আর  মুখে মুখে বলবেন (রাধার মেয়ে পরমা) আমার বশীভুত হোক, যতক্ষণ না পুরো কাগজ খানা পুড়ে না যায়, বলতেই থাকবেন আর পুড়াবেন।  এই কার্য নিয়মিত ২১ ‍দিন করতে হবে।

যদি আপনি মেয়ে লোক হয়ে থাকে তাহলে প্রথমে আপনার প্রেমিকের বাবার নাম ও পরে প্রেমিকের নাম উল্লেখ করবেন। এই ভাবে-(শ্বপনের ছেলে তপন) আমার বশীভুত হোক।

বিঃদ্রঃ- এই প্রয়োগ টি করতে আপনাকে অবশ্যই কোন সিদ্ধ গুরুর অনুমতি নিতে হবে। তারপর গুরুকে রাজি ও খুশি করতে কিছু হাদিয়া বা চন্ডিবরণ দিতে হবে। আর যদি কোন সিদ্ধ গুরুর অনুমতি না পান বা খোঁজ না মিলে তাহলে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। কারণ অনুমতি ছাড়া কোনভাবেই এই টোটকা কার্যকরী হবে না। তাই গুরুর প্রয়োজন।।।ধন্যবাদ।।।