মাইন্ড পাওয়ার দিয়ে ফিরিয়ে আনুন পুরনো ভালবাসা

মাইন্ড পাওয়ার দিয়ে ফিরিয়ে আনুন পুরনো ভালবাসাঃ

লজ্জাতুন নেছা ওয়েব সাইটের পক্ষ্য থেকে আপনাকে স্বাগতম।। আমাদের আজকের বিষয় হলো তন্ত্র মন্ত্র ব্যতিত একটি আলোচনা। আশা করি সবার উপকারে আসবে। চলুন তাহলে শুরু করা যাক-

—ও আমাকে ছেড়ে চলে গেছে, কি করে ও কে আমি আবারো পেতে পারি? সে আর আমাকে ভালবাসে না। আমি এখন এমন কি করবো যে, সে যাকে আবারো আমাকে ভালবাসে। আমি একজনকে ভালবাসি সে আামাকে ভালবাসে কিনা জানি না। কিন্তু আমি তাকে সারাজিবনের জন্য পেতে চাই।

কিন্তু কি করে-

আমি কি আমার অবচেতন মনের পাওয়ারকে ব্যবহার করে ও কে পেতে পারি? বন্ধুরা এই টাইপের অনেক কল এসেছিলো আমাদের কাছে। এই টাইপের প্রবলেম গুলো যেহুতু অনেককেই ফেস করতে হচ্ছে। আর যেহুতু অনেকেই এই প্রশ্ন গুলো করেছিলো তাই আমরা আজ আপনাদের কথা ভেবেই এই আলোচনাটি আপনার সাথে উপস্থাপন করেছি। আপনারা অনেকেই কল করে বলেছিলেন, আমরা দুইজন আগে দুজনাকে প্রচন্ড ভালবাসতাম, কিন্তু এখন আর সে ভালবাসা নেই। আবার অনেকেই বলেছিলেন যে, আমি একজনকে ভালবাসি কিন্তু সে আমাকে ভালবাসে কিনা জানি না কিন্তু আমি তাকে প্রচন্ড ভালবাসি। আমি কি তাকে এখন পেতে পারি আমার অবচেতন মনের শক্তির ব্যবহার করে?

আমাদের উত্তর হলো হ্যা-

আপনি আপনার মাইন্ড পাওয়ার দিয়ে আপনার বয়ফ্রেন্ড কিংবা আপনার গার্লফ্রেন্ডকে আবারো ফিরে পেতে পারবেন। আপনাদের রিলেশন আবার আগের মতো করতে পারবেন। আজকের আলোচনাতে আমরা আপনাদের বলবো কিভাবে আপনার মাইন্ড পাওয়ার অন্য একজন মানুষের উপরে প্রয়োগ করা যায়। যেগুলোর ব্যবহার করলে আপনি আবার সব কিছুকে আগের মতো করে নিতে পারবেন। আলোচনাটি শেয়ার করার আগে তরফ থেকে একটি রিকুয়েষ্ট, আপনি যদি আমাদের ওয়েব সাইটের নতুন ভিজিটর হয়ে থাকেন তাহলে প্লিজ আমাদের ফেইসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন একদম ফ্রিতে। তাহলে আর দেরি না করে চলুন আজকের আলোচনায় যাই।

আপনি যদি এই টেকনিক গুলোর ব্যবহার করতে পারেন তাহলে আপনি আবার আপনার বয়ফ্রেন্ড বা গার্লফ্রেন্ডকে সারাজিবনের জন্য কাছে পাবেন। আপনাদের ব্রেকআপ কেন হয়েছিলো, নিশ্চয় আপনি বা আপনার বয়ফ্রেন্ড বা গার্লফ্রেন্ড এমন কিছু করেছিলো তার কারনেই হয়তো আপনাদের সম্পর্ক টা ধ্বংস হয়েছিলো। আপনি যদি মনে করেন, আপনার বয়ফ্রেন্ড বা গার্লফ্রেন্ড এর জন্য আপনাদের ব্রেকআপ হয়েছিল, তাহলে এখনি আপনি তাকে ক্ষমা করে দিন। আপনি অতীত কে ভুলে যান। আপনাদের রিলেশনকে নতুন এক রুপ দিন। আপনি মন থেকে সব খারাপ অতীত গুলোকে মুছে দিন। আর যদি আপনি মনে করেন যে, আপনার সেই দোষের কারনেই আপনাদের দুজনের ব্রেকআপ হয়েছে। তাহলে আপনি নিজেই নিজেকে ক্ষমা করে দিন। আপনি এটা ভাবুন যে, পৃথিবীর সব রিলেশনেই প্রায় মনোমালিন্য হয় ঝগড়া হয়। আপনাদের এটা নতুন কিছু নয়। আপনি আগে নিজের সামনে মুখ তুলে দাঁড়ান, এতে আপনার ভিতরের সব নেগেটিভ এনারর্জী চলে যাবে, আপনার মন হাল্কা হয়ে যাবে, আপনার কাছে রিলেশনটা নতুন মনে হবে। এটা হলো ফার্ষ্ট স্টেপ।

এবার আপনি প্রত্যেক দিন সকালে ঘুম থেকে উঠে আপনার বয়ফ্রেন্ড বা গার্লফ্রেন্ড কে শুভ সকাল বলুন, যেন সে আপনার পাশেই আছে, আপনি সারাদিন এমন টা করবেন যে, সে সারাদিন আপনার পাশেই আছে ও তার সাথে আপনার কোন দিন ব্রেকআপ হয়নি। সকালে ঘুম থেকে উঠে কয়েক মিনিটের জন্য ধ্যান করুন আর ভাবুন যে, সে আপনার পাশেই আছে। আপনি তাকে শুভ সকাল বললেন যেন সেও আপনাকে শুভ সকাল বললো যেমন টা হয় টিভি দেখার মতো। আপনি সব কিছু দেখতে পাচ্ছেন এমন ভাবে চোখ বন্ধ করে তাকে ভাবুন। এমন মনে করুন যে, তার সাথে কথা বলতেছেন ও সে আপনার কথায় উত্তর দিতেছে আপনি এমন ভাবুন যে, তার কথার সাউন্ড পর্যন্ত আপনি শুনতে পাচ্ছেন। এবার সারাদিন আপনি মনে করুন যেন, সে আপনার পাশেই আছে। আপনারা দুজনে কোন খানে ঘুরতে গেছেন, গল্প করতেছেন, রাতে ঘুমানোর আগে তাকে নিয়ে একটু ধ্যান করুন। সে আপনার সাথে আছে আপনি তাকে শুভ রাত্রী জানালেন সেও আপনাকে শুভ রাত্রী জানালো এমন টা ভাবুন। অর্থাৎ সারাদিনে আপনি কখনো মনে আনবেন না যে, আপনাদের কখনো ব্রেকআপ হয়েছিলো বা কথা বলা বন্ধ হয়েছিলো। মনে করুন আপনারা এখনো রিলশনে আছেন। আপনি সারাদিনে যখন গান শুনের তখন বেদনার গান নয় তখন লাভ শং শুনুন, পজেটিভ মুভি দেখুন, রোমান্টিক মুভি দেখুন। এতে আপনার মধ্যে অনেক পরিবর্তন আসবে ও ন্যাগেটিভ চিন্তা গুলো সরে যাবে। প্রায় দুই মাসের মতো আপনাকে এই ধ্যান বা চিন্তা করতেই হবে। যদি দুই মাসের আগেই আপনাদের আবার রিলেশন ঠিক হয়ে যায় তাহলে ও প্রায় দুই মাসের মতো এই টেকনিক গুলো অবলম্বন করুন। তারপর আপনি যা যা করবে না। আপনি আপনাদের পুরনো লাভ লেটার বা ফোন রেকর্ডিং কখনো ভুল করেও পড়বেন না বা শুনবেন না। ফেইবুকে বা অন্যান্ন মাধ্যমগুলোর মেসেজ না দেখলেই ভাল হবে। তার প্রফাইল কখনো দেখবেন না তার প্রফাইলের কাছ থেকে উঁকি মারা বন্ধ করে দিন। আপনাদের পুরনো যত গিফট আছে সেগুলোকে একটি আলমারির ভিতরে রেখে দিন। যাতে যেখানে সহজে নজর না যায়। আপনাদের আগের ছবি দেখবেন না। নিয়মিত দুইমাস আপনাকে এগুলো করতে হবে। আপনি যদি এগুলো করেন তাহলে কিছু দিনের ভিতরেই দেখবেন আপনার মাইন্ডের ভিতরে আগের মূহুর্ত গুলো চলে আসবে। পুরনো কথা মনে পড়ে যাবে। এতে আপনার মাইন্ডের ভিতরে ধ্যানের বাঁধা আসবে এবং নেগেটিভিটি আপনার মধ্যেই থেকেই যাবে। আর আমাদের টেকনিক গুলো অনুসরণ করার সময় কখনই মনে আনবেন না যে, আমি তাকে কখন পাবো কখন সে আমার সাথে কথা বলবে। কবে আমাদের রিলেশন আবার আগের মতো হয়ে যাবে।

আপনার অবচেতন মন সব কিছুই জানে। আপনাকে কিছুই ভাবতে হবে না, আপনারা অনেকেই বলেছেন যে, সে আমাকে ভালবাসতো কিন্তু এখন সে আমাকে ছেড়ে চলে গেছে এবং সে আবার নতুন করে একজনকে ভালবাসে, তাহলে কি আমি তাকে আবার নতুন করে আকৃষ্ট করতে পারবো। এর উত্তর হলো যদি সে কোন একদিন আপনাকে মন থেকে ভালবেসে থাকে ও আপনার প্রতি তার ফিলিংস থেকে থাকে তাহলে আপনি তাকে আবার আপনার প্রতি তাকে আকৃষ্ট করতে পারবেন। কিন্তু সে যদি আপনাকে মন থেকে কোন দিন ভালবেসেই না থাকে, শুধু শুধু সে আপনাকে ব্যবহারের জন্য আপনার সাথে এত দিন অভিনয় করে থাকে তাহলে হয়তো অবচেতন মনের পাওয়ার দিয়ে তাকে ফিরাতে একটু কষ্ট সাধ্য হয়ে যাবে, যেমন আপনাকে প্রচুর মেডিটেশন করতে হবে।  আর যদি আপনি কাউকে মন থেকে পাওয়ার আশায়  স্বপ্নে বিভর হয়ে থাকেন। তাহলে আপনি ও এই টেকনিক গুলো ব্যবহার করতে পারেন। অবচেতন মনের পাওয়ার এমন নয় যে, আপনি শুধু চোখ বন্ধ করলেন আর বাচ কাজ হয়ে গেলো এমন টা নয়। আপনাকে নিরবতা ও কমল মন নিয়ে ফিলিংস করতে হবে ধ্যানের গভীরে প্রবেশ করতে হবে। আর ভাবতে হবে হ্যা সত্যি সে আমার সাথেই আছে। আমাদের রিলেশন বেশ ভালোই চলছে সব কিছু ঠিক ঠাক আছে। আপনার ফিলিংস যতই ষ্ট্রং হবে ততই তাড়াতাড়ি আপনি রেজাল্ট পাবেন। এ ক্ষেত্রে কারোর এক মাস আবার কারোর দুই মাসও লাগতে পারে। তবে যদি আপনি এই অবচেতন মনকে খুব দ্রুত কাজে লাগাতে পারেন তাহলে হয়তো ১-২ সপ্তাহের মধ্যেও তাকে পেতে পারেন। দেখুন আপনি প্রতিদিন যাকিছু করেন তার ভিতরে একধরনের ভাইব্রেশন আছে। সেগুলো হয়তো নেগেটিভ বা পজেটিভ ভাইব্রেশন হতে পারে। আপনি সারাদিন যত নেগেটিভ নিয়ে ভাববেন আর নেগেটিভ গুলোকে সামনে তুলে ধরবেন ঠিক তেমনি আপনার সাথে আরোও তেমনি রেজাল্ট আসতে শুরু করবে। তাই নেগেটিভ গুলো চিন্তা না করে পজেটিভ গুলো চিন্তা করার চেষ্টায় সারাক্ষন থাকবেন আর ভাববেন। যদি আপনি সারাক্ষন নেগেটিভ নিয়ে ভাবেন তাহলে আপনার আর কোন চান্জ থাকবে না রিলেশন কে পুনরায় আয়ত্বে বা অনুকুলে আনার। আর আমাদের সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো আমাদের কারোর ব্রেকআপ হলে আমরা সারাদিন স্যাড শং শুনতে থাকি। তাকে নিয়ে যত কষ্ট ও মর্মবেদনা রয়েছে সেগুলো মনে করতে থাকি যেটা একদম করা উচিৎ নয়। সারাদিন স্যাড শং শুনতে শুনতে আমরা আগের দিনের কথা মনে করতে থাকি। কিংবা শুধুই নেগেটিভ কিছু ভাবতে থাকি। এটা আপনার রিলশনের জন্য খুবই ভয়ংকর। আপনাদের রিলেশন ঠিক হয়ে যাওয়ার যতটুকু চান্জ ছিলো আর কোন চান্জ থাকবে না এই সব নেগেটিভ চিন্তা সারাক্ষণ মাথার ভিতরে ঘন্টা বাজাতে শুরু করলে। আপনি যদি এই সব নেগেটিভ চিন্তা গুলো বার বার করে আপনার অবচেতন মনের কাছে বার্তা পাঠিয়ে দেন তাহলে আপনার অবচেতন মন আর আপনার জন্য তেমন কিছুই করতে পারবে না। আপনি যেমন টা ভাববেন ঠিক তেমনি ভাবেই সে কাজ করে চলবে। ব্রেকআপ হওয়া রিলেশনকে পুনরায় ঠিক করার জন্য হয়তো আপনার সামনে অনেক রাস্তা থাকবে কিন্তু আপনি সারাদিন নেগেটিভ চিন্তা ভাবনা করার কারনে আর কখনোই আপনার সামনে এমন পজেটিভ চিন্তা আর আপনার মাথায় কখনো আসবে না।

আবার অনেকেই বলেছেন, আমার বয়ফ্রেন্ড বা গার্লফ্রেন্ড আমার সাথে হঠাৎ করেই কথা বলা বন্ধ করে দিয়েছে। ফেইসবুকে ব্লক করে দিয়েছে বা মেসেজে রিপ্লাই দেয় না ফোন করলে রিসিভ করে না কয়েক দিন পর আবার সেই ফোন নাম্বার ও ব্লক করে দিয়েছে। এখন কি করে আবারো তাকে পেতে পারি। বন্ধু হিসেবে একটু অনুরোধ করছি যদি কোন বয়ফ্রেন্ড বা গার্লফ্রেন্ড কোন কিছু না বলেই এমন টা করে তাহলে আপনি তাকে মন থেকে ভুলে যাওয়ার চেষ্টা করুন কারণ যে বয়ফ্রেন্ড বা গার্লফ্রেন্ড কোন কিছু না বলেই এমন টা করে, তাহলে বুঝবেন যে, সে আপনার সাথে শুধু টাইম পাস করেছে সে তার মনের গভীরে আপানকে কখনোই জায়গা দেয়নি বা দেবেন না। তাই সময় থাকতেই তাকে মন থেকে মুছে ফেলুন। যদি আপনার বয়ফ্রেন্ড বা গার্লফ্রেন্ড এর সত্যি কোন সমস্যা থেকে থাকে তাহলে হয়তো কিছু দিন পর সে আপনার সাথে আবার যোগাযোগ করবে ও আপনার সাথে পুনরায় সে কথা বলবে। কিন্তু যে, হুট করেই সব দিক থেকে আপনার সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছে তার থেকে দূরে থাকাই ভালো। তারকারণ সে আপনাকে কখনোই ভালবাসতো না। যেহুতু অবচেতন মনের একটা সুপার পাওয়ার রয়েছে তাই আপনি হয়তো এই টেকনিকের মাধ্যমে তাকে আবার আকৃষ্ট করতে পারেন। মনের মানুষটিকে শুধু নয় এই ধ্যানের মাধ্যমে আপনারা আপনাদের নিকট তম যেকাউকেই প্রয়োজনে আকৃষ্ট করতে পারবেন।। তবে প্রচন্ড মেডিটেশনের মাধ্যমে তাকে আকৃষ্ট করা সম্ভব।।

আপনি যদি চান যে আপনার পুরনো কোন বয়ফ্রেন্ড বা গার্লফ্রেন্ড কে আবারো কাছে পেতে তাহলে অবশ্যই মেডিটেশন শিখুন ও আপনার মনের মানুষটিকে সারাজিবনের জন্য ফিরে পান। আমাদের এই লজ্জাতুন নেছা প্রতিষ্ঠান টি মেডিটেশন কোর্চ টি সামান্য হাদিয়ার মাধ্যমে প্রদান করতেছে তাই যেকোন শ্রেনীর মানুষই এটা নিতে সাবলম্বী হবে।

এই কোর্চ করলে আপনি আপনার

-পুরনো প্রেমিকাকে ফিরে পাবেন-

-পুরনো প্রেমিককে ফিরে পাবেন-

-ছেড়ে যাওয়া স্ত্রী কে ফিরে পেতে পারেন-

-ছেড়ে যাওয়া স্বামীকে ফিরে পেতে পারেন-

আপনি যদি দেশের বাহিরেও থাকেন তবুও কোন সমস্যা হবে না। শুধু দরকার আপনার একটু নিরবতা ও পরিষ্কার স্থান যেখানে বসে আপনি এই মেডিটেশন করতে পারবেন।

আরো কিছু জানার থাকলে কল করুন-

+8801767296990

মেডিটেশন করার জন্য উপরোক্ত বইটি আপনাকে শতভাগ সহযোগীতা করবে, তাই এই বইটি সংগ্রহ করুন। এই বইটির মূল্য- ১০০০০(দশ হাজার) টাকা।