মেয়ে বশিকরন

মেয়ে বশিকরনঃ

লজ্জাতুন নেছা ওয়েব সাইটের পক্ষ্য থেকে আপনাদের সকলকে জানাই আন্তরিক সুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। আমাদের আজকের বিষয় কুফরি মন্ত্রের দ্বারা মেয়ে বশিকরন। তবে এই মন্ত্রটি কোন মুসলিম করতে যাবেন না। কারণ এই মন্ত্র পাঠ করলে ঈমান নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভবনা থাকে। তাই অন্য কোন ধর্মলম্বী লোকদের মাধ্যমে আপনার এই কাজ টি করে নিতে পারেন। যে মেয়ে আপনাকে দীর্ঘদিন যাবৎ ধরে ঘুরাচ্ছে আপনাকে ভালবাসার কথা বলে অনেক টাকা পয়সা নষ্ট করাচ্ছে কিন্তু বিয়ে করতে চাইলে তালবাহানা আরম্ভ করেন, সেই মেয়ের উপর এই মন্ত্রটি প্রয়োগ করুন তাহলে সে আপনার পিছন পিছন ঘুরে বেড়াবে। আপনার বাধ্যগত থাকবে। আপনাকে ছাড়া আর কাউকেই সে মন দিতে পারবে না।

সকল প্রকার মেয়েদের বশিভূত করা কালো বাণ। এই মন্ত্রের দ্বারা যে কোনো মেয়েকে অনায়াসে বশিভূত করা যায়। সঠিক ভাবে মন্ত্র প্রয়োগ করতে পারলে ১০০% কাজ হবে।

মন্ত্রঃ বিসমিল্লাহির রহমানির রহিম সর্বা শক্তি সর্বা চান্ডালিনী” পাতাল বাসি যক্ষ নাগরানি; চৌন মুখি আঁধা চাহুনি- তার উপরে পুষ্পা রমনি- পঞ্চ পান্ডব ভিমের হংকার” রামের হাতে রাবনের ভষ্মার; ডাকি তোরে মোর বাণে- বাণের জোড়ে অমুকের মন টানে” ডানে টানে চান্ডালী- বামে পদ্মর রানী; ছার ছার ছার- তোর বাপ মার ঘর গৃহ ছার” ছার ছার ছার – তোর মাও মাসি ছার; মোর বাণ যদি লড়ে চড়ে- দোহাই কামাখ্যা মায়ের___ যুনির জল মহাদেবের মুখে পড়ে। দোহাই তেত্রিশ কোটি দেবতার।

নিয়মঃ মন্ত্রটি আমবস্যার রাতে মুখস্ত করতে হবে। তারপর মেয়ের দিকে তাকিয়ে মন্ত্র ৩ বার পাঠ করে ফুঁক মারলেই মেয়ে আপনার বশ মানবে (পরিক্ষিত)।

বিঃদ্রঃ- উপরোক্ত প্রয়োগ টি করতে চাইলে অবশ্যই গুরুর অনুমতি গ্রহণ করতে হবে। যদি কোন গুরুর অনুমতি না পেয়ে থাকেন তাহলে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। আপনার ব্যক্তিগত কাজটি আমাদের মাধ্যমে ও করাতে পারবেন।