যেকোন নারী বা পুরুষের মুখের দিকে তাকিয়েই বশ করুন

যেকোন নারী বা পুরুষের মুখের দিকে তাকিয়েই বশ করুনঃ

হ্যালো ভিউয়ারস্ লজ্জাতুন নেছা.কম এর পক্ষ থেকে আপনাদের সবাইকে জানাচ্ছি আন্তরিক শুভেচ্ছা এবং অভিনন্দন। আমরা আজকে আপনাদের এখানে যে বশীকরণ মন্ত্র নিয়ে হাজির হয়েছি এটি আরও একটি নতুন বশীকরণ মন্ত্র। এর পূর্বে আমরা বিভিন্ন ধরনের বশীকরণ মন্ত্রের প্রয়োগ পদ্ধতি এবং মন্ত্র আমরা আপনাদেরকে দেখিয়েছি। আজও আমরা আরও একটি নতুন বশীকরণ মন্ত্র আপনাদের দেখাবো। আজ আমরা আপনাদের সামনে যে বশীকরণ মন্ত্র সম্পর্কে আলোচনা করব তা শুধুমাত্র একটি গাছের চারা দিয়ে আপনি উক্ত বশীকরণ মন্ত্রের সাহায্যে নিয়ে আপনার কাঙ্খিত ব্যক্তিকে আপনার বশীভূত করতে পারবেন। এই বশীকরণ মন্ত্র আপনি যেকোনো কাজের ক্ষেত্রে প্রয়োগ করতে পারবেন। কিন্তু অবশ্যই একটি কথা আপনি মনে রাখবেন এই বশীকরণ মন্ত্র কোন খারাপ কাজের উদ্দেশ্য নিয়ে আপনি করতে যাবেন না তাহলে আপনি নিজে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। উক্ত বশীকরণ মন্ত্র টি খুবই শক্তিশালী বশীকরণ মন্ত্র। তাহলে চলুন বশীকরণ মন্ত্র টি আমরা প্রথমে দেখে নিই-

“ওহম্ শ্বেতবর্ণ সিত পর্বতবাসিনী অমতিহিতেসে কার্য কুরু কুরু ঠঃ ঠঃ স্বাহা।”

প্রয়োজনীয় সামগ্রী: আজ আমরা আপনাদের এখানে যে বশীকরণ মন্ত্র সম্পর্কে আলোচনা করছি এই বশীকরণ মন্ত্র আপনি যদি আপনার নিজের আর তো করতে চান বা আপনি যদি প্রয়োগ করতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই এই প্রয়োজনীয় সামগ্রী আপনাকে সংগ্রহ করতে হবে। আর তা হচ্ছে- আটটি ঘুংঘচী গাছের চারা।

নিয়ম কানুন: এই মন্ত্রের ক্ষেত্রেও আমরা একই কথা বলব আপনি মন্ত্র প্রথমে খুব ভালোভাবে আগে মুখস্ত করে নিন তারপর আপনি মন্ত্রকে খুব ভালোভাবে উচ্চারণ করা শিখে নিন। মন্ত্র উচ্চারণের যদি আপনার কোন ধরনের ভুল হয়ে থাকে তাহলে আপনি এই মন্ত্র প্রয়োগ করে কোন প্রকার ফলাফল পাবেন না। এজন্য অবশ্যই মন্ত্র আগে ভালোভাবে মুখস্থ করে নিন সেই সাথে সঠিক উচ্চারণ করুন। তারপর মন্ত্র কে আপনি সিদ্ধ করে নিন। মন্ত্র সিদ্ধ করার জন্য আপনি কৃষ্ণপক্ষের 14 তারিখ বেছে নিবেন। উত্তর দিন আপনি উক্ত মন্ত্র দশ হাজার বার জপ করবেন। আপনি যখন মন্ত্র সিদ্ধ করবেন তখন আপনি কারো সাথে কোন প্রকার কথা বলবেন না এবং কেউ জানো আপনাকে না থাকে সেই সাথে আপনি উক্ত সময়ে সুগন্ধি জ্বালাবেন।

প্রয়োগ পদ্ধতি: এই মন্ত্রটি প্রয়োগ করার জন্য আপনি কৃষ্ণপক্ষের ১৪ তারিখ বেছে নিবেন। উত্তর দিন আপনি আটটি ঘুংঘচি গাছের চারা মাটি সহ তুলে আনবেন। তারপর উপরক্ত মন্ত্রটি ১০৪ বার করে প্রত্যেকটি গাছের ওপর পড়ে ফু দিবেন। তারপর উক্ত গাছের চারা গুলি পুনরায় মাটিতে পুতে দিবেন। তারপর আপনি প্রতিদিন উক্ত মন্ত্র পাঠ করবেন এবং গাছের চারা গুলিতে জল দিবেন। আপনি যখন গাছের চারা তুলে এনে মন্ত্র পাঠ করবেন তখন অবশ্যই আপনি আপনার কাঙ্খিত ব্যক্তির স্মরণ করবেন সেই সাথে তার কল্পিত চেহারা আপনার চোখের সামনে আনবেন। আপনি যখন প্রতিদিন গাছের চারা গুলোতে জল দিবেন মন্ত্রের মাধ্যমে তখন আপনার কল্পিত মনের মধ্যে অবশ্যই আপনার কাঙ্খিত ব্যক্তিকে স্মরণ করবেন। এই পদ্ধতিতে আপনি প্রতিনিয়ত উক্ত গাছগুলিতে মন্ত্র পড়বেন এবং জলদি থাকবেন এরূপ করতে থাকলে খুব অল্প সময়ের মধ্যে আপনি আপনার কাংখিত ব্যক্তি আপনার বশীভূত হবে।

আমাদের এই আলোচনা সম্পর্কে যদি আপনাদের কোন ধরনের প্রশ্ন থেকে থাকে বা কোন ধরনের মন্তব্য থাকে তাহলে অবশ্যই আপনি আমাদের যে কমেন্ট করতে পারেন বা আমাদেরকে ইমেইল করতে পারেন বা আমাদের সাথে সরাসরি কথা বলতে চাইলে আপনি আমাদের এই ওয়েবসাইটে আলাপন অপশনে গিয়ে আমাদের সাথে কথা বলতে পারেন।

বি. দ্র: কাউকে কোন প্রকার ক্ষতি করার উদ্দেশ্য নিয়েই কাজটি করতে যাবেন না তাহলে আপনি নিজে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন।

[metaslider id=81]