রামবাসক গাছের উপকারীতা

রামবাসক গাছের উপকারীতাঃ

রামবাসক গাছটি সাধারণ বাসক গাছ। আমাদের দেশের সর্বত্রই জন্মে। রামবাসকের পাতা বোঁটা থেকে ঝুলে থাকে এবং কিছুটা গোল ধরণের ও আগার দিকটা বর্শার ফলার মত দেখতে। পাতার রস খুবই তিতা।

এগাছের ফুলের রং কমলা রঙের হয় অথবা কখনো কখনো ইঁটের মত লাল হয়। ফলের আকৃতি চারকোণা বাক্সের মত। প্রতিটি ফলের মধ্যে ১২ থেকে ১৪ বীজ থাকে।

এই রামবাসক গাছটি আমাদের বিভিন্ন রোগের ঔষধ হিসাবে সাহায্য করে।

হুপিং কাশিতেঃ সাধারণ সুর্দি-কাশির থেকে হুপিং কাশি খুবই কষ্টদায়ক। এ অসুখ ছোটদের বেশি হয়।

রামবাসকের ১০ টি পাতা ১৫০ মি.লি. পানিতে ফেলে তাতে ১ গ্রাম মিসরী, ২ টি তেজপাতা, ১ গ্রাম দারুচিনি ও ১২ টি গোলমরিচ দিয়ে ফোটাতে হবে। পানি ফুটে অর্ধেকটা হলে আঁচ থেকে নামিয়ে পাতলা পরিষ্কার কাপড়ে ছেকে দিনে তিনবার চার চামচ করে তিন দিন খাওয়ালে হুপিং কাশি অবশ্যই সেরে যাবে।

মেয়েদের অতিরিক্ত ঋতুশ্রাবেঃ কম বয়েসী মেয়দের অতিরিক্ত রক্তস্রাব হলে রামবাসকের পাতার রস দু’চামচ করে দিনে দু’বার খেলে উপকার হবেই।

জ্বরেঃ কোন কারণে দেহের উত্তাপ অর্থাৎ জ্বর বেশি হলে রামবাসকের ফুল এবং বীজ বাটা খাওয়ালে রোগী আরাম পায়।

রক্তপিত্তেঃ রামবাসকের পাতা দশ গ্রাম মত পানি দিয়ে বেটে তার রস এক চামুচ মধুর সাথে মিশিয়ে খাওয়ালে উপকার হয়।

{বিঃদ্রঃ- আপনি যদি লজ্জাতুন নেছা বইটি সংগ্রহ করেন, তাহলে আপনার পার্শোনাল সমস্যা গুলো আপনি নিজেই সমাধান করতে সক্ষম হবেন তাই আর দেরি না করে আমাদের মোবাইল এ্যডমিনের সাথে এখনি যোগাযোগ করে বইটি ক্রয় করুন। আপনি যেখানেই থাকুন না কেন আমাদের মোবাইল এ্যডমিন আপনার কাছে বইটি পাঠিয়ে দিবে কুরিয়ার সার্ভিস এর মাধ্যমে... ধন্যবাদ} ***লজ্জাতুন নেছা বইটি ১-৭ খন্ড ফ্রিতে পেতে চাইলে এখুনি উপরের এ্যড টিতে ক্লিক করুন***