লজ্জাতুন নেছা Lojjatun Nesa

লজ্জাতুন নেছা Lojjatun Nesa

দিক্ নির্দেশনায় গুরু মাতা

আপনার জিবনকে সহজ সুন্দরতম করতে, লজ্জাতুন নেছা আপনার পাশে

হ্যালো ভিউয়ারস্ লজ্জাতুন নেছা ওয়েব সাইটের পক্ষ্য থেকে আপনাদের সকলকে জানাই আন্তরিক সুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। আমাদের আজকের আলোচনাটি হয়তো আপনার হৃদয় স্পর্শ করতে পারবে বলে আমরা মনে করি। তাই আপনারা এই আলোচটির শেষ পর্যন্ত পড়ুন। লজ্জাতুন নেছা প্রতিষ্ঠান বিগত কয়েক বছর ধরে আপনাদের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান দিচ্ছে ও আপনাদের সহযোগীতা করে চলেছে। আমাদের কাছে বেশির ভাগ কাজ আসে বশীকরণ বা কাউকে নিজের প্রতি আকৃষ্ট করে নিজের বাধ্যতা স্বীকার করা। আসলে বেশির ভাগ প্রয়োজন মিটে বিভিন্ন মানুষের মাধ্যমে। তাই কাউকে না কাউকে জিবনের সকল ক্ষেত্রে প্রয়োজন পড়ে। তাই প্রয়োজনীয় ব্যক্তিদের নিজের প্রতি আকৃষ্ট করে নিজের সকল থেমে কাজ গুলো অতি সহজে করে নেওয়া হয়। আজকে আমরা আলোচনা করবো কি জন্য এই সব মানুষকে বশীভূত করতে হয়। তো চলুন তাহলে আলোচনা শুরু করা যাক-

দেখে নিন কোন সমস্যায় আপনি বর্তমান উপস্থিত রয়েছেন-

প্রেমিকা বশিকরণ-

পৃথিবীতে হয়তো কেউ না কেউ আপনার মনের মনিকোঠায় জায়গায় করে নিয়েছে। তাকে ঘিরে আপনি হয়তো অনেক স্বপ্ন দেখা আরম্ভ করেছেন। দিন রাত শুধু তাকে নিয়েই আপনার যত কল্পনা, ভাবনার সাগরে সারাক্ষণ নিজেকে ডুবিয়ে রেখেছেন। কিন্তু কিছু দিন পরে আপনি জানতে পেরেছেন যে, সেই মনের মানুষটি আপনাকে কোন ভাবেই গ্রহণ করতে চাচ্ছেন না, আপনাকে সে ভালবাসতে পারবে না, আপনার সাথে তার জিবন কাটাতে অনেক সমস্যা আছে বলে আপনাকে সে দূরে ঠেলে দেয়। নানান অযুহাতে আপনাকে সে প্রত্যাক্ষান করে দেয়। আপনি সেই কষ্টে দিন রাত বিভর হয়ে দিন দিন শোকাহত হতে থাকেন। তাকে ছাড়া আপনি যেন কোন কিছুই ভাবতে পারছেন না। তাই আর ভাবনা চিন্তা বাদ দিয়ে আজই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। আমরা এই সমস্যার সঠিক সমাধান দিবো আপনার মনের মানুষটিকে আপন করে দেওয়ার জন্য আমরা যথা সাধ্য কাজ করে যাবো।

 প্রেমিক বশীকরণ-

বর্তমান অনেক মেয়েরাই ছেলেদের কাছে ধোকা খাচ্ছে, দীর্ঘ দিন ধরে সম্পর্ক করার পর দেখা যাচ্ছে যে, সেই প্রেমিক তার প্রেমিকার সাথে ঠিক মতো দেখা করে না ও ফোনে কথা বলে না। আবার কিছু দিন পর দেখা যায়, তার ফোন নাম্বার ব্লাক লিষ্টে রেখে দিয়েছে ও সকল সোসাল মিডিয়ার এ্যকাউন্ড গুলো ব্লক করে দিয়েছে কোন ভাবেই তার সাথে আর কোন যোগাযোগ নেই। এখন ওকাতরে মেয়েটি শুধু কেঁদে কেঁদে দিন কাটাচ্ছে। তাই বলি আর কান্না না করে, লজ্জাতুন নেছা ওয়েব সাইটের সাথে যোগাযোগ করুন।

স্ত্রী বশীকরণ-

অনেকের স্ত্রী রয়েছেন নিজের মতো করে চলাফেরা করে, স্বামীকে ঠিক মতো মূল্যায়ন করে না, স্বামীকে খুশি না করে অন্য বন্ধুবান্ধবদের সাথে মিষ্টি মিষ্টি কথা বলে। আবার অনেকের ক্ষেত্রে দেখা যায়, অনেকের স্ত্রীর বিয়ের আগে কোন না কোন বয়ফ্রেন্ড ছিলো, তাই সে স্ত্রী এখনো তার সাথে ফোনে কথা বলে ও নিজের স্বামীর সাথে ঠিক মতো কথা বলে না তার বয়ফ্রেন্ড এর সাথে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরতে যায় ও তার সাথে সময় ব্যয় করে। তাই যাহারা এই সমস্যায় রয়েছেন তেনারা আর দেরি না করে লজ্জাতুন নেছা ওয়েব সাইটের সাথে যোগাযোগ করুন ও নিজের পরিবারকে সুখে সুখময় করে তুলুন।

স্বামী বশীকরণ-

আপনি হয়তো দেখতে সুন্দর কিন্তু তবুও কেন জানেন না আপনি তবুও আপনার স্বামী আপনাকে পছন্দ করেন না। আপনাকে ঠিক মতো ভালবাসেন না। কেন জানি আপনাদের মাঝে একটা বাঁধা সব সময় দেখা দেয়। সকল ক্ষেত্রে তিনি আপনাকে নিয়ে কম কম করে ভেবে থাকেন। আপনার প্রয়োজন মেটার মতো তার অবস্থা থাকা সত্বেও কেন জানি আপনার সাথে সে খারাপ আচরণ করে থাকে। আপনাকে মন থেকে সে ভালবাসে না। আবার আপনি কখনো হয়তো জানতে পারেন যে, আপনার স্বামী অন্য খারাপ নারীর সাথে মেলা মেশা করেন। এটা জানতে পারায় আপনার পায়ের নিচের যেন মাটি সরে যায় যায় অবস্থা। তাই এই সব বিষয় গুলো সমাধানের জন্য আজই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।

শশুর শাশুরী বশীকরণ-

বর্তমান সমাজে কেউ বলতে পারবেন না যে, কারোর পরিবারে ঝামেলা বা ঝগড়া হয় না। তবে ঝগড়ার ভিতরে একটা পার্থক্য রয়েছে। যেমন অনেকের বাড়িতে প্রায় প্রতিদিন ঝগড়া লেগেই থাকে। একে অন্যের প্রতি সুখি নয়। তাই প্রতিদিন ঝগড়া লেগেই থাকে। বেশির ভাগ পরিবারে ঝগড়া সৃষ্টি হয় শশুর শাশুরীর কারনে, ধরে নিলাম আপনি একজন নারী, আপনি প্রতিদিন সকল কাজ কর্ম সঠিক ভাবে করার পরও আপনার প্রতি কেউ খুশি না আপনাকে কেউ দেখতেই পারে না। আপনার স্বামী যে ভাবে যে ভাবে বলে তার চেয়েও একটু ভালো করে কাজ করার পরও তার বাবা মার মন জয় করতে পারেন না আপনি তার মন জয় করে আছেন আপনারি বড় জন। আপনার স্বামীর বড় বা ছোট ভাইয়ের স্ত্রীর প্রতি তাদের একটা সুনজর সব সময় কাজ করে চলেছে। অথচ তারা আপনার মতো করে কখনো কাজ করে না। তবুও তাদের প্রতি আপনার শশুর শাশুরী অনেক খশি। আসলে বিষয় টা হয় অন্য রকম। তারা আপনার শশুর শাশুরীদের বশ করে রেখেছে, তাই তারা তাদের কথায় উঠে বসে।

আবার অন্য দিকে আপনি যদি হন একজন পুরুষ মানুষ তাহলে হয়তো আপনারও অনেক সমস্যা দেখা দিতে পারে, যেমন আপনি হয়তো একজন সরকারী কর্মকর্তা বা একজন প্রবাসী কিংবা একজন ভালো মানের ব্যবসায়ী। আপনি আপনার স্ত্রীকে যথেষ্ট ভালবাসেন তবুও আপনার স্ত্রীকে আপনি নাকি ভালবাসেন না ও ঠিক মতো খাওয়া খাদ্য দেন না, তাকে আপনি ঠিক মতো চাহিদা মেটাতে পারেন না এসব আলোচনা করেন আপনার শশুর শাশুরীরা এসব কথা বার্তা বলে আপনার স্ত্রীকে আপনার প্রতি মনো ক্ষুন্ন করে দেয়। এক দিন দুই দিন বলতে বলতে হঠাৎ দেখবেন যে, আপনার স্ত্রী আর আপনাকে ঠিক মতো আদর যত্ন করেন না। আসলে দেখা যায় আপনার সুখের সংসারে বিষ ঢেলে দেয় আপনার শশুর শাশুরীরা। এমন কি আপনার স্ত্রীকে তারা আটকে রেখে দিয়ে বলে আর আমার মেয়েকে তোমার বাড়িতে পাঠাবো না। এরকম করে কয়েক মাস বছর পর্যন্ত চলে যায়। এরকম অবস্থায় আপনি আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।

বিবাহিত নারী বশীকরণ-

আপনি যে মেয়েকে ভালবাসতেন সে হয়তো আজ অন্য কারোর সাথে বিয়ে আবদ্ধ হয়ে গেছে, কিন্তু আপনি কোন ভাবেই তাকে ভুলতে পারছেন না। তাকে ছাড়া যেন আপনার পৃথিবীটাই আধার। কিছু দিন পর সে আপনার কাছে কেঁদে কেঁদে বলে আমি আমার স্বামীর সংসার করতে পারবো না। তুমি আমাকে যেভাবেই হোক তোমার কাছে নিয়ে আসো। আমি এখনো তোমাকে ভীষণ ভালবাসি। তোমাকে ছাড়া আমি বাঁচবো না। এমতা অবস্থায় আপনি আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।

বিবাহিত পুরুষ বশীকরণ-

আপনি যে প্রেমিকের সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ সম্পর্ক করে দিন পার করেছেন, তাকে নিয়ে অনেক স্বপ্ন দেখেছেন। কিন্তু হঠাৎ করেই তার বিয়ে হয়ে যায়, তাকে বিয়ে করার জন্য এখনো আপনি পাগল হয়ে আছেন। যে কোন কারণেই তাকে পাওয়ার আশায় আপনি মরিয়া হয়ে আছেন। এমতাবস্থায় আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।

কর্মচারী বশীকরণ-

আপনি হয়তো একজন বিশিষ্ট প্রতিষ্ঠানের মালিক, হতে পারেন কোন কারখানার মালিক, আপনার প্রতিষ্ঠানে এমন কেউ রয়েছেন, যার উপরে আপনি সম্পূর্ণ প্রতিষ্ঠানটির দায়িত্ব গুলো দেওয়া হয়েছে। তিনি সঠিক ভাবে আপনার সকল কাজ কর্ম ও প্রতিষ্ঠান টি সুন্দর ভাবে চালিয়ে নিতাছে। সে আপনার প্রতিষ্ঠানে থাকলে হয়তো, আপনার অনেক উন্নতি হবে। কিন্তু হঠাৎ করেই, সে কেন জানি আর আপনার প্রতিষ্ঠানে আসতেছে না। আপনার প্রতিষ্ঠানের সব কাজ গুলো ঠিক মতো দেখা শুনা করতেছে না। আপনার ভীষণ ক্ষতি হয়ে যাচ্ছে। এরকম অনেক কর্মকর্তাই আপনার ভীষণ প্রয়োজন হয় আপনার প্রতিষ্ঠানের স্বার্থে। তাই এরকম কর্মচারীদের আগে থেকেই বশ করে রাখা ভালো। এই সমস্যা সমাধানের জন্য আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।

{বিঃদ্রঃ- আপনি যদি লজ্জাতুন নেছা বইটি সংগ্রহ করেন, তাহলে আপনার পার্শোনাল সমস্যা গুলো আপনি নিজেই সমাধান করতে সক্ষম হবেন তাই আর দেরি না করে আমাদের মোবাইল এ্যডমিনের সাথে এখনি যোগাযোগ করে বইটি ক্রয় করুন। আপনি যেখানেই থাকুন না কেন আমাদের মোবাইল এ্যডমিন আপনার কাছে বইটি পাঠিয়ে দিবে কুরিয়ার সার্ভিস এর মাধ্যমে... ধন্যবাদ}