শত্রুর খারাপ উদ্দেশ্য থেকে নিজেকে রক্ষা করার উপায়

শত্রুর খারাপ উদ্দেশ্য থেকে নিজেকে রক্ষা করার উপায়ঃ

হ্যালো ভিউয়ারস্ লজ্জাতুন নেছা ওয়েব সাইট এর পক্ষ্য থেকে আপনাদের স্বাগতম। আজ আমি আপনাদের সামনে একটি আত্মরক্ষা বিষয়ক মন্ত্র নিয়ে হাজির হয়েছি। অনেক সময় অনেকের বিভিন্ন রকম শত্রু হয়ে যায়। কারনে অকারনেই শত্রুর জন্ম হয়ে যায়। আবার দেখা গেছে অনেক সময় শত্রুতা সৃষ্টি হয় কিন্তু টাকা বা অর্থ সম্পদ ও নারী বা মেয়েদের কে নিয়ে, টাকা পয়সার যদি একটু গড় মিল হয়ে যায় তখন কিন্তু বন্ধুও শত্রু হয়ে যায়। আবার সেই আপন বন্ধুও নিজের ক্ষতি করার জন্য বিভিন্ন উপায় ও মাধ্যম ব্যবহার করে। আবার অনেক সময় যে বিষয় টা সচারচার দেখা যায়, আপনি যাকে নিয়ে ঘর সংসার করতেছেন, তার জিবনে হয়তো কেউ এসেছিল তার বিয়ের পূর্বে আপনি হয়তো সেটা কখনো জানতেও পারেন নি কিংবা আপনার স্ত্রী আপনাকে কখনো সেই বিষয় টি বলে নি। তাই আপনি আর বুঝতে পারেন না। অনেক দিন পর আপনার স্ত্রীর সাথে সেই বয়ফ্রেন্ড এর দেখা হয়ে যায়। সেই বয়ফ্রেন্ড তাকে এখনো পেতে চায়, এরকম পরিস্থিতিতে সেই বয়ফ্রেন্ড কোন না কোন তান্ত্রিক এর মাধ্যমে কোন রকম তদবীর গ্রহণ করে, আপনার স্ত্রীকে সে বশীকরণ করে। তারপর আপনার স্ত্রী আপনার সাথে খারাপ ব্যবহার করে ও তার মাঝে মাঝে বিভিন্ন রকম সমস্যা দেখা দেয়, তার যেন কোন কিছুই মনে থাকে না। আপনার স্ত্রীকে সে কাছে পাওয়ার জন্য আপনাকেও সে কালো যাদুর প্রয়োগ করে। দুজনের উপরে সে ক্ষতি করতে থাকে। বিশেষ করে শত্রু যখন আপনার জিবনের উপরে বান বা যাদু বিদ্যার প্রভাব ফেলে তখন আপনি নিরুপায় হয়ে বিভিন্ন তান্ত্রিকের সরনাপন্ন হয়ে যান। আজকে আমি আপনাদের নিজে নিজে শত্রুর কালো যাদুর বান বিদ্যা থেকে রক্ষার মন্ত্রটি শেয়ার করছি- যদি কারোর স্ত্রী খুব সুন্দরী হয়ে থাকে তবে এলাকার লোকজনের চোখ পড়বে তাই অনেক দুষ্ট লোক আপনার স্ত্রীর সরলতার সুযোগ গ্রহন করতে চাইবে। তাই আপনার স্ত্রীকে দুষ্ট লোকের দৃষ্টি থেকে হেফাজতে রাখতে এই মন্ত্রটি ব্যবহার করুন।

বাণ ও মারণ কর্ম হতে দূরে থাকার মন্ত্রঃ

“আসন বন্দ বাসন বন্দ

বন্দ সিংহাসন,

চাইর কোন পৃথিবী বন্দ

গোসাইর আসন।

ক্যাচ ক্যাচানীর কিচিনী কাচন

যমদূত আন্দার হতে কাজ করম্।

মুই পুত কালীর

নোহাকে জাং পাথরকে শরীর।
হিন্দুর গুরু মুসলমানের পীর

না নাগে গুলি না নাগে তীর।

হক আল্লা হক পীর

ফরনার শরীরে মারিব বজ্রশীল।”

প্রয়োগ বিধিঃ- বাড়ী হতে বের হবার আগে এই মন্ত্র তিনবার পাঠ করে বুকে ফুঁ দিতে হবে। তাহলে পথে কোন বিপদ আপদ আসবেনা বা কোন প্রকার বাণ গায়ে লাগবেনা। উক্ত প্রয়োগ টি করতে চাইলে অবশ্যই অনুমতি গ্রহণ করতে হবে। অনুমতির জন্য আমাদের যোগাযোগ পেজে গিয়ে যোগাযোগ করুন। ধন্যবাদ।।

{বিঃদ্রঃ- আপনি যদি লজ্জাতুন নেছা বইটি সংগ্রহ করেন, তাহলে আপনার পার্শোনাল সমস্যা গুলো আপনি নিজেই সমাধান করতে সক্ষম হবেন তাই আর দেরি না করে আমাদের মোবাইল এ্যডমিনের সাথে এখনি যোগাযোগ করে বইটি ক্রয় করুন। আপনি যেখানেই থাকুন না কেন আমাদের মোবাইল এ্যডমিন আপনার কাছে বইটি পাঠিয়ে দিবে কুরিয়ার সার্ভিস এর মাধ্যমে... ধন্যবাদ} ***লজ্জাতুন নেছা বইটি ১-৭ খন্ড ফ্রিতে পেতে চাইলে এখুনি উপরের এ্যড টিতে ক্লিক করুন***