২১ দিনে স্বপ্ন পূরণ করুন

মাত্র ২১ দিনে নিজের স্বপ্ন পূরণ করুনঃ

হ্যালো বন্ধুরা আজকে আমি আপনাদেরকে একটি মজার বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো যেটি আমরা ত্রাটক সাধনার বিভাগে সবসময় রাখি সেটি আপনাদের আজকে ফ্রিতে দিয়ে দিচ্ছি। আপনারা এর ব্যবহার করার জন্য চেষ্টা করবেন আশা করি এর অনেক ফল পাবেন। আমরা এর পূর্বেও ত্রাটক সাধনা নিয়ে কয়েকটি আলোচনা করেছি। আজকের বিষয়টি সম্পূর্ণ ভিন্ন যার সাহায্যে আপনারা নিজের স্বপ্ন পূরণ করতে সক্ষম হবেন মাত্র ২১ দিনে। চলুন তাহলে আলোচনায় আসি। আমাদের আজকের আলোচনা-
(মাত্র ২১ দিনে নিজের স্বপ্ন পূরণ করুন)
আপনি যদি কোন কিছু মন থেকে চান! তবে সেটি সারা ভ্রমান্ড আপনাকে এনে দেয়ার চেষ্টা করে। প্রতিটি মানুষেরি কোন না কোন স্বপ্ন থাকে। কেউ সারাটি জিবন অর্থের পিছনে ছুটে বেড়ায়। আবার কেউ একটু শান্তির জন্যে নিজের ধন-সম্পদ ও অর্থ সবকিছু ছেড়ে দেয়। আপনার কাছে সফলতার মানে যাই হোক। আপনি যাই কিছু হতে চান যাই কিছু পেতে চান! একটি কথা সত্যি তার জন্যে আপনাকে চেষ্টা করতে হবে। অনেকে মনে করে আমিতো আমার স্বপ্ন পূরণের জন্যে ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করি, যদি ঈশ্বর আমার ভাগ্যে না রাখে তাহলে আমি কি করতে পারি। বন্ধুরা যে কোন কিছু পাওয়ার জন্যে শুধু চাইলেই হবে না, চেষ্টা করতে হবে। আর আপনার চেষ্টা যদি সঠিক রাস্তায় হয়, তাহলেই আপনি সবকিছু পাবেন ও আপনার স্বপ্ন পূরণ হবে। ভাবুনতো আপনার স্বপ্ন পূরণ করার জন্যে আপনার পাশে যদি সারা ভ্রমান্ড থাকে। বন্ধুরা আজ আমি বলবো আপনার স্বপ্ন পূরণ করার জন্য সারা ভ্রমান্ডকে কিভাবে কাজে লাগাবেন। আপনি কি জানেন আপনার এবং স্বপ্নের মাঝে একটি শক্ত দরজা আছে, ঐ দরজা টা আপনাকে খুলতে হবে। ঐ দরজাটার চাবি ও আপনার কাছেই আছে। আর সেটি হলো আপনার Subconscious Mind (অবচেতন মন), কিন্তু সমস্যাটা হচ্ছে আমরা চবিটিকে সঠিক ভাবে ব্যবহার করতে জানি না। যদি আপনি আপনার Subconscious Mind (অবচেতন মন) কে সঠিক ভাবে ব্যবহার করতে শিখে যান, তাহলে আপনি সেই সমস্ত কিছু পেয়ে যাবেন, যা এখন আপনার কাছে এখন স্বপ্ন।
চলুন তাহলে এখন Subconscious Mind (অবচেতন মন) সম্পর্কে সাম্মক ধারনা জেনে নেই। আপনার Subconscious Mind (অবচেতন মন) ভাল এবং খারাপের কোন পার্থক্য বোঝে না, যেমন আপনি যেরকম বীজ রোপন করবেন ঠিক সেই রকম ফল পাবেন। Subconscious Mind (অবচেতন মন) আমাদের করা কাজ চিন্তা ভাবনাকে জমা করে রাখে। প্রথম প্রথম আপনি যখন কোন কাজ করেন সেটি Subconscious Mind (অবচেতন মন) এর কাছে পৌঁছায় না। যদি কোন কিছু আপনি নিয়মিত ভাবে ২১ দিন পর্যন্ত করেন, সেটি Subconscious Mind (অবচেতন মন) এর কাছে জমা হয়ে যায়। তখন সেটি অটোমেটিক ভাবে হতে থাকে। মনে করুন আপনি সাইকেল চালানো শিখবেন, তখন আপনাকে প্রতিটি মুহূর্ত ভাবতে হবে আমি সাইকেলে উঠে কখন কি করবো। কিন্তু ২১ দিন পর্যন্ত যদি আপনি এর সাথে লেগে থাকেন তখন কিন্তু এটি নিয়ে আর আপনাকে ভাবতে হবে না। আপনি যদি আপনার কোন কথাকে Subconscious Mind (অবচেতন মন) এর কাছে পৌঁছাতে চান, তবে সেটিকে বার বার বলে বলে, আপনার Subconscious Mind (অবচেতন মন) এর কাছে পৌঁছা সম্ভব। মনে রাখবেন Subconscious Mind (অবচেতন মন) কিন্তু আপনার বর্তমানকেই বুঝতে পারে, তাই আপনার যদি ভবিষ্যৎ এ কোন স্বপ্ন থাকে তাহলে মেনে নেন যে, সেটি হয়ে গেছে, ইহা ছাড়াও Subconscious Mind (অবচেতন মন) কল্পনা ও বাস্তবতা বোঝে না। তাই আপনি যখন কোন ভূতের ছবি দেখেন তখন আপনি ভয় পান, যদি আপনি জানেন যে, এটি শুধুই মাত্র একটি মুভি বা সিনেমা, প্রকৃতির একটি নিয়ম আছে, যেটিকে বলে (The Law of Attraction) যার মানে হলো, আপনি যদি কোন কিছু নিয়ে খুব ভাবেন, প্রকৃতি সেটাকে আপনার কাছে এনে দেয়ার চেষ্টা করে অর্থাৎ আপনার স্বপ্ন পূরণের জন্যে যা কিছু প্রয়োজন সেগুলো আস্তে আস্তে আপনার কাছে এমনিতেই আসতে থাকবে। তাই আপনি যা কিছু চান, সেই চাওয়াটাকে খুব গভীর ভাবে চিন্তা করে আপনার Subconscious Mind (অবচেতন মন) এর কাছে পাঠিয়ে দিন। আর দেখুন আপনার জিবন কিভাবে পরিবর্তন হতে থাকে। খুব গুরুত্ব পূর্ণ বিষয়টি হচ্ছে আপনি আপনার স্বপ্নগুলোকে কিভাবে Subconscious Mind (অবচেতন মন) এর কাছে পৌঁছে দিবেন।
একটি কাগজে বর্তমান চিন্তাগুলোকে লাল কালি দিয়ে লিখতে থাকুন। এবার চোখ বন্ধ করে ভাবুন আপনার স্বপ্ন পূরণ হয়ে গেছে এবং ভাবুন আপনি সেই স্বপ্নের জিবনটিকে উপভোগ করছেন। যেহুতু আপনার Subconscious Mind (অবচেতন মন) কল্পনা ও বাস্তবের ব্যখ্যা বোঝেনা। সেহুতু আপনার Subconscious Mind (অবচেতন মন) এটিকে বিস্বাস করে নিবে। এটি আপনাকে ২১ দিন পর্যন্ত করতে হবে। এই ২১ দিন পর্যন্ত কখনও কোন সময় কোন ধরনের ন্যাগেটিভ চিন্তা করবেন না। প্রয়োজন হলে আপনি আপনার সমস্ত ন্যাগেটিভ চিন্তাগুলোকে একখানে তালা লাগিয়ে বন্ধ করে রাখুন। ন্যাগেটিভ বন্ধুদের সাথেও এই ২১ দিন দেখা না করা ভাল। তার কারণ তারা সারাক্ষন শুধুই ন্যাগেটিভ কথা বার্তা বলেই থাকে, তারা নিজেও কিছু করতে চায় না আবার অন্যকেও কিছু করতে দিতে চায় না। আপনি রোজ সকাল বিকাল দিনে দুই বার করে চোখ বন্ধ করে ভাবুন আপনার স্বপ্নগুলোকে নিয়ে বৃহৎ ভাবে গল্প সাজান। তবে প্রতিদিন একই জিনিসি নিয়ে ভাবতে হবে। ঠিক প্রথম দিন যা ভেবেছেন সেই ভাবনাটা যেন ২১ দিনেও তাই থাকে। এভাবে কিছু দিন ভাবতে থাকলে দেখা যাবে যে, কিছুতেই আপনার মাঝে আর কোন ন্যাগেটিভ চিন্তা আসবে না। তবে আপনাকে পরিশেষে একটি কথা বলে রাখি, শুধু ভেবেই বা বসে বসে চিন্তা করলেই, আপনার উদ্দেশ্য সফল হবে না। আপনাকে কাজও করতে হবে। কিন্তু যদি আপনি আপনার স্বপ্ন গুলোকে আপনার Subconscious Mind (অবচেতন মন) এর কাছে পৌঁছে দিতে পারেন। তাহলে সেই স্বপ্ন পূরণের জন্যে যেসকল কাজ করার প্রয়োজন ঠিক সেই সকল কাজ গুলোই আপনার Subconscious Mind (অবচেতন মন) আপনার কাছে উপস্থাপন করে দিবে। আর ঠিক তখনই আপনার দরজা খুলে যাবে।
বিঃদ্রঃ- Subconscious Mind (অবচেতন মন) কে কাজে লাগাতে চাই আপনাকে অবশ্যই ত্রাটক সাধনা শিখতে হবে। আর ত্রাটক সাধনা এখন খুবই স্বল্প মুল্যে পাওয়া যাচ্ছে। Subconscious Mind (অবচেতন মন) এর কাছে যেকোন বার্তা পৌঁছাতে ত্রাটক সাধনার ভূমিকা অপরিসীম। তাই তৃতীয় নয়নকে জাগ্রত করুন ও আপনার অসম্ভব স্বপ্ন গুলো কে বাস্তবে রুপান্তর করুন। আমাদের প্রতিষ্ঠান থেকে ত্রাটক সাধনার কোর্চ ফি মাত্র (৳-৫৭০০০ হাজার টাকা) নির্ধারণ করা হয়েছে। তাই বিভিন্ন পেশার লোকেরাই এই কোর্চটি নিতে সক্ষম হয়ে থাকে। ধন্যবাদ।

{বিঃদ্রঃ- আপনি যদি লজ্জাতুন নেছা বইটি সংগ্রহ করেন, তাহলে আপনার পার্শোনাল সমস্যা গুলো আপনি নিজেই সমাধান করতে সক্ষম হবেন তাই আর দেরি না করে আমাদের মোবাইল এ্যডমিনের সাথে এখনি যোগাযোগ করে বইটি ক্রয় করুন। আপনি যেখানেই থাকুন না কেন আমাদের মোবাইল এ্যডমিন আপনার কাছে বইটি পাঠিয়ে দিবে কুরিয়ার সার্ভিস এর মাধ্যমে... ধন্যবাদ}